এইচএসসি ২০২১

অর্থনীতি ১ম পত্র এইচএসসি ২০২১ ১ম সপ্তাহ এসাইনমেন্ট সমাধান

আসসালামু আলাইকুম প্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুরা, এইচএসসি ২০২১ পরীক্ষার্থী যারা আছো তাদের ১৫ সপ্তাহের ৩০ টি এসাইনমেন্ট এর ১ম এসাইনমেন্ট প্রকাশ করা হয়েছে।আজকের এই পোস্টে আমরা অর্থনীতি ১ম পত্রের এইচএসসি ২০২১ এর ১ম সপ্তাহ এসাইনমেন্ট সমাধান নিয়ে এসেছি। এখানে আমরা নমুনা প্রশ্ন তৈরি করেছি। তোমরা তোমাদের মত করে সাজিয়ে কিছু এড করে বাদ দিয়ে এসাইনমেন্ট টি করতে পারো। তবে আমরা এখানে ১০০% সঠিক উওর টি লিখেছি।

শ্রেনীঃ এইচএসসি ২০২১

বিষয়ঃ অর্থনীতি ১ম পত্র

এসাইনমেন্ট নংঃ ০১

শিরোনাম: ভোক্তা ও উৎপাদকের আচরণ

নির্ধারিত কাজঃ

এসাইনমেন্ট কভার বোর্ড প্রদত্ত

নমুনা উত্তরপত্র

উপযোগের ধারণা:

সাধারণত উপযোগ বলতে কোনো জিনিসের উপকারিতাকে বোঝায়। কিন্তু উপযোগ শব্দটি বিশেষ অর্থে ব্যবহৃত হয়। কোনো দ্রব্যের মানুষের অভাব মোচনের ক্ষমতাকে উপযোগ বলা হয়। যে কোনো দ্রব্য তা বস্তুগত হোক বা অবস্তুগত হোক, ভালো বা মন্দ হোক, মানুষের প্রয়োজন মিটাতে পারলেই বুঝতে হবে যে তার উপযোগ আছে। যেমন খাদ্য, বস্ত্র, ঘর-বাড়ি ইত্যাদির উপযোগ আছে। কারণ খাদ্য মানুষের ক্ষুধা মিটায়, বস্ত্র মানুষের লজ্জা নিবারণ করে, ঘর-বাড়ি মানুষকে আশ্রয় প্রদান করে। অনুরূপভাবে মদ, আফিম, সিগারেট প্রভৃতি দ্রব্যেরও উপযোগ রয়েছে। কারণ, এসব দ্রব্যও মানুষের অভাব মিটিয়ে থাকে। বস্তুত, অর্থনীতিতে উপযোগের সাথে ভালো-মন্দ বা ন্যায় অন্যায়ের প্রশ্ন জড়িত থাকে না। যে কোনো দ্রব্য মানুষের কোনো অভাব পূরণ করতে সক্ষম হলেই বুঝতে হবে তার উপযোগ আছে। অধ্যাপক মেয়ার্স- এর মতে, “উপযোগ হলো কোনো দ্রব্যের ঐ বিশেষ গুণ বা ক্ষমতা যা মানুষের অভাব পূরণ করতে পারে। কোনো দ্রব্য ভোগের উপর ভিত্তি করে উপযোগের ধারণাসমূহ নিম্নরূপভাবে ব্যাখ্যা করা যায়

১. প্রাথমিক উপযোগ (Initial Utility)

২. প্রান্তিক উপযোগ (Marginal Utility)

৩. মোট উপযোগ (Total Utility)

অতএব বলা যায়, বিভিন্ন প্রকার বস্তুগত ও অবস্তুগত পণ্যদ্রব্য ও সেবার মধ্যে মানুষের বিভিন্নমুখী চাহিদা বা অভাব পূরণের যে ক্ষমতা বিদ্যমান থাকে, তাকে উপযোগ বলে।

উদাহরন ও সূত্রসহ মোট উপযোগ ও প্রান্তিক উপযোগের মধ্যে সম্পর্ক: মোট উপযোগ ও প্রান্তিক উপযোগের মধ্যে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রয়েছে। কোনা দ্রব্যের বিভিন্ন একক হতে যে বিভিন্ন পরিমাণ উপযোগ পাওয়া যায় তাদের সমষ্টিকে মোট উপযোগ বলা হয়। পক্ষান্তরে, কোনো দ্রব্যের এক একক পরিবর্তনের ফলে মোট উপযোগের যে পরিবর্তন হয় তাকে প্রান্তিক উপযোগ বলা হয়। মোট উপযোগ ও প্রান্তিক উপযোগের মধ্যে ঘনিষ্ট সম্পর্ক রয়েছে। মোট উপযোগ ওপ্রান্তিক উপযোগের মধ্যে সম্পর্ক নিম্নরূপ:

(১) মোট উপযোগ হচ্ছে প্রান্তিক উপয়োগের সমষ্টি। অর্থাৎ, TU = MU1 + MU2 +MU3+……+ MUn আবার,উপযোগের পরিবর্তন (ΔTU) এবং ভোগের পরিবর্তনের (ΔQ) ভাগফল হলো প্রান্তিক উপযোগ। অর্থাৎ, MU = (ΔTU ΔQ)

(২) কোনো ভোক্তা যখন একটি দ্রব্যের বিভিন্ন অতিরিক্ত একক ক্রয় করতে থাকে তখন মোট উপযোগ ক্রমাগত বাড়তে থাকে। কিন্তু প্রান্তিক উপযোগ ক্রমশ হ্রাস পেতে থাকে।

(৩) দ্রব্যটির বিভিন্ন একক ক্রয়ের সাথে সাথে মোট উপযোগ বৃদ্ধি পায়; তবে তা আনুপাতিক হারে বৃদ্ধি না পেয়ে ক্রমহ্রাসমান হারে বৃদ্ধি পায়।

(৪) যতক্ষণ প্রান্তিক উপযোগ শূন্য অপেক্ষা বেশি থাকে ততক্ষণ মোট উপেেযাগ বাড়তে থাকে।

(৫) যখন প্রান্তিক উপযোগ শূন্যে পৌছায় তখনই মোট উপযোগ সর্বাধিক হয়।

(৬) প্রান্তিক উপযোগ শূন্য হওয়ার পরও দ্রব্যটি ক্রয় করতে থাকলে প্রান্তিক উপযোগ ঋণাত্মক (negative) হবে। তখন মোট উপযোগ বৃদ্ধি না পেয়ে বরং হ্রাস পায়।

ক্রমহ্রাসমান প্রান্তিক উপযোগ বিধির সূচি, রেখা ও রেখার ব্যাখ্যা:

অন্যান্য অবস্থা স্থির থেকে, কোনো নির্দিষ্ট সময়ে কোনো ব্যক্তি যখন একই দ্রব্য ক্রমাগতভাবে ভোগ করতে থাকে, তখন ঐ দ্রব্যের মোট উপযোগ বৃদ্ধি পেলেও প্রান্তিক উপযোগ ক্রমশ হ্রাস পায়। অর্থাৎ ভোগের এককপ্রতি বৃদ্ধি ও প্রান্তিক উপযোগ ক্রমান্বয়ে হ্রাস-এ দুয়ের সম্পর্ককে অর্থনীতিতে ক্রমহ্রাসমান প্রান্তিক উপযোগ বিধি বলে।

উদ্দীপকের আলোকে ক্রমহ্রাসমান প্রান্তিক উপযোগ বিধির সূচি তৈরি করা হলো :

চিত্রে OX অক্ষ বরাবর ভোগের পরিমান (Q) ও OY অক্ষ বরাবর মোট উপযোগ (TU) নির্দেশ করা হলো।

এখানে, ভোগের পরিমান যখন ১ম, ২য়, ৩য়, ৪র্থ, ৫ম, ৬ষ্ঠ ও ৭ম একক তখন মোট উপযোগ যথাক্রমে ১২, ২২, ৩০, ৩৬, ৪০, ৪২,৪২ একক। এখানে লক্ষ্য রাখার বিষয় হচ্ছে ৬ষ্ঠ ও ৭ম এককে মোট উপযোগ একই। এই পর্যায় থেকে ভোক্তা যত একক ভোগ বাড়াতে থাকবেন, তার মোট উপযোগ তত হ্রাস পেতে থাকবে।

চিত্রে OX অক্ষ বরাবর ভোগের পরিমান (Q) ও OY অক্ষ বরাবর প্রান্তিক উপযোগ (MU) নির্দেশ করা হলো।

এখানে, ভোগের পরিমান যখন ১ম, ২য়,৩য়, ৪র্থ, ৫ম, ৬ষ্ঠ ও ৭ম একক তখন প্রান্তিক উপযোগ যথাক্রমে ১২,১০,৮, ৬, ৪, ২,০ একক যা যথাক্রমে ১P, ২Q, ৩R, ৪S, ৫T, ৬U, ৭V দ্বারা নির্দেশ করা হলো। এখন, P, Q,R, S, T, U, V যোগ করলেই MU রেখা পাওয়া যাবে। এখানে লক্ষ্য রাখার বিষয় হচ্ছে যখন মোট উপযোগ সর্বোচ্চ তখন প্রান্তিক উপযোগ শূণ্য।

ক্রমহ্রাসমান প্রান্তিক উপযোগ বিধির ব্যতিক্রম:

নিম্নলিখিত ক্ষেত্রে বিধিটির ব্যতিক্রম লক্ষ করা যায় :

(১) দ্রব্যের এককের পরিমাণ: দ্রব্যটির এককগুলো যদি উপযুক্ত পরিমাণে না হয় তাহলে বিধিটি কার্যকরী হবে না। প্রথম এককটি যদি খুবই ক্ষুদ্র হয় তাহলে দ্বিতীয় এককের উপযোগ না কমে বরং বৃদ্ধি পাবে।

(২) অভ্যাস ও রুচির পরিবর্তন: মানুষের অভ্যাস ও রুচির পরিবর্তন হলে বিধিটি কার্যকরী হয় না। কারণ, রুচি বা অভ্যাস পরিবর্তিত হলে অতিরিক্ত এককের উপযোগ হ্রাস না পেয়ে বৃদ্ধি পাবে। যেমন অনেক সময় অপ্রত্যাশিতভাবে অধিক সম্পদ অর্জন করার ফলে কোনো ব্যক্তির রুচির পরিবর্তন ঘটে। সে তখন তার পছন্দমতো কোনো দ্রব্য যত খুশি ভোগ করতে থাকে।

(৩) সময়ের ব্যবধান: ক্রমহ্রাসমান উপযোগ বিধিটি একটি নির্দিষ্ট সময়ে কার্যকরী হয়। কিন্তু সময়ের পরিবর্তন হলে বিধিটি কার্যকরী হবে না। কারণ, একটি জিনিস আজ ব্যবহারের ফলে যেউপযোগ পাওয়া যায় আগামীকাল ব্যবহার করলে ঐ একই জিনিসের উপযোগ না কমে বেশিও হতে পারে। এ জন্য দেখা যায় যে, কোনো ব্যক্তি আজ একটি কমলালেবুর জন্য ৮ টাকা দিতে রাজি থাকলে আগামীকাল উক্ত কমলা লেবুর জন্য ৮.০০ টাকা না দিয়ে ৭.০০ বা ৯.০০ টাকাও দিতে পারে। সুতরাং সময়ের পরিবর্তন হলে বিধিটি কার্যকরী হয় না।

(৪) শখের দ্রব্য: এমন কিছু দ্রব্য আছে যা মানুষ শখ করে সংগ্রহ করে। যেমন ডাকটিকিট পুরাতন মুদ্রা ইত্যাদি। এসব দ্রব্যের ক্ষেত্রে উপযোগ কখনও হ্রাস পায় না। এগুলো মানুষ যতই সংগ্রহ করে ততই তার সংগ্রহের আকাঙ্ক্ষা বৃদ্ধি পায়।

(৫) নেশার ক্ষেত্রে : নেশার ক্ষেত্রেও বিধিটি কার্যকরী হয় না। যেমনকানো মদ্যপায়ী যতই মদ পান করে ততই তার নিকট মদ পানের আগ্রহ বাড়তে থাকে। (৬) বাহ্যাড়ম্বর সম্পন্ন দ্রব্য : সমাজে এমন অনেক দ্রব্যসামগ্রী আছে যা প্রাপ্তির মাধ্যমে বাহ্যাড়ম্বর দেখানো যায় এবং সামাজিক মর্যাদা লাভ করা যায়। যেমনমহিলাদের স্বর্ণালংকার ব্যবহার। কোনো মহিলা যত বেশি স্বর্ণালংকার সংগ্রহ করবে সে তত বেশি গৌরব বোধ করবে। এক্ষেত্রে ক্রমহ্রাসমান প্রান্তিক উপযোগ বিধিটি কার্যকরী হয় না। (৭) আয় বৃদ্ধি : অনেক দ্রব্য আছে যার উপযোগ আয় বৃদ্ধির সাথে সাথে বেড়ে যায়। যেমন : কোনো লোকের আয় বৃদ্ধি পেলে সে তার বাড়িখানা আরও বড় করতে চাইবে। এ জন্য তার নিকট পার্শ্ববর্তী জমির উপযোগ বৃদ্ধি পাবে। এক্ষেত্রে তত্ত্বটি কার্যকরী হয়। না।

(৮) বিকল্প বা পরিপূরক দ্রব্য : কোনো দ্রব্যের উপযোগ কেবল ঐ দ্রব্যের উপর নির্ভর করে না, বরং তা অনেকটা বিকল্প বা পরিপূরক দ্রব্যের উপরও নির্ভরশীল। যেমনগাড়ি পাওয়ার সাথে সাথে পেট্রোলের উপযোগও বেড়ে যায়। অনুরূপভাবে কফির দাম বাড়লে চায়ের উপযোগ বৃদ্ধি পায়। এসবক্ষেত্রে তত্ত্বটি কার্যকরী হয় না।

(৯) কৃপণের ক্ষেত্রে : কৃপণ ব্যক্তির ধন লিন্সার কোনো শেষ নেই। কৃপণ লাকেরা যতই অর্থ সংগ্রহ করে ততই তার অর্থ লাভের আকাঙ্ক্ষা বৃদ্ধি পায়। এ জন্য কৃপণ ব্যক্তির ক্ষেত্রে ক্রমহ্রাসমান প্রান্তিক উপযোগ বিধিটি প্রযোজ্য হয় না। অর্থশাস্ত্রের অন্যান্য বিধির মত ক্রমহ্রাসমান প্রান্তিক উপযোগ বিধিটিরও কিছু কিছুব্যতিক্রম রয়েছে। তবে এ সব ব্যতিক্রম ছাড়া অন্যান্য ক্ষেত্রে বিধিটি সাধারণভাবে প্রযোজ্য।

Alamin Hossain Meraj

Assalamu Alaikum. I am Al-Amin Hossain Meraj, the founder of Education Helpline. I am studying CSE. I like to help students with various updates related to education. The guidelines and support that I did not get during my admission test, now I will help all the students in Bangladesh with all the guidelines and information for the admission test. I believe education is free. Learn with heart and soul.

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
error: Content is protected !!